শনিবার ২৫ জুন ২০২২

| ১০ আষাঢ় ১৪২৯

KSRM
মহানগর নিউজ :: Mohanagar News

প্রকাশের সময়:
১৮:০০, ৯ মে ২০২২

ওবাইদুল আকবর রুবেল, ফটিকছড়ি

ঈদের ছুটি: ফটিকছড়ির পর্যটন স্পটগুলোতে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়

প্রকাশের সময়: ১৮:০০, ৯ মে ২০২২

ওবাইদুল আকবর রুবেল, ফটিকছড়ি

ঈদের ছুটি: ফটিকছড়ির পর্যটন স্পটগুলোতে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়

এবার ঈদের ছুটিতে চট্টগ্রামের বৈচিত্রময় নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ভরপুর ফটিকছড়ি উপজেলার বিনোদন স্পটগুলোতে পর্যটকের ভিড় বেড়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় রেকর্ড পরিমাণ পর্যটকের সমাগম ঘটেছে ফটিকছড়িতে।

ফলে ঈদ পরবর্তী সময়ে প্রতিদিনই লোকে লোকারণ্য ছিল দাঁতমারা হেঁয়াকো সেল্ফিরোড, ভূজপুর রাবার ড্যাম, আছিয়া, রামগড় ও হালদা ভ্যালী চা বাগানসহ অন্যান্য বিনোদন স্পটগুলো। বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও দেশের বিভিন্ন প্রান্তর থেকে ছুটে আসছে ভ্রমণপিপাসুরা।

রবিবার (৮ মে) সরেজমিনে দেখা যায়, আয়তনের দিক থেকে এশিয়ার সর্ববৃহৎ রাবারবাগান হিসেবে খ্যাত দাঁতমারা রাবারবাগানের মাঝখান দিয়ে বয়ে যাওয়া সেল্ফিরোডে পর্যটকের ভিড় বেড়েছে। ঈদের টানা ছুটিতে দেশের দূরদূরান্ত থেকে প্রকৃতির মুগ্ধতা আর দুষণমুক্ত অক্সিজেন গ্রহণ করতে ছুটে এসেছে হাজারও দর্শনার্থী।

চট্টগ্রাম শহর থেকে ঘুরতে আসা রায়হান ও শারমিন দম্পতি জানান, ‘করোনার কারণে গত দুই বছর ঘরের বাইরে ঈদ করতে পারিনি। তাই এবারের ঈদের ছুটিতে প্রাকৃতিক নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে এখানে এসেছি। জায়গা ও পরিবেশটি বেশ সুন্দর।’

ভূজপুর রাবারর ড্যাম এলাকায় বেড়াতে আসেন উপজেলা পাইন্দংয়ের রুমেন, অমি ও আরিফ। তারা জানান, ‘করোনার কারণে গত দুই বছর ঈদ ভালোভাবে করতে পারিনি। তাই এবার ঈদে বন্ধুদের নিয়ে একটু ঘুরতে এসেছি।’

সচেতন মহল বলছে, দীর্ঘ দুই বছর পর করােনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও সরকারিভাবে কোনাে বিধিনিষেধ না থাকায় এবার ঈদে ফটিকছড়ির বিনোদন স্পটগুলোতে ব্যাপক পর্যটকের সমাগম ঘটেছে। ফটিকছড়ির ১৭টি চা ও দুটি রাবারবাগানসহ সম্ভাবনাময় স্থানসমূহ পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে সরকারের পাশাপাশি সম্মিলিত উদ্যোগ নিলে অদূর ভবিষ্যতে ফটিকছড়িকে একটি পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে বলে অভিমত বিশেষজ্ঞদের।

ভূজপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন মহানগর নিউজকে জানান, আমরা পর্যটকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য পুলিশের আলাদা টিম রেখেছি। হেঁয়াকো সেল্পিরোড, তারাকো রাবারবাগান, হাজারিখিল অভয়ারণ্য কেন্দ্র ও ভূজপুর রাবার ড্যাম এলাকায় বিভিন্ন পর্যটক আসছে। পর্যটকরা  স্বাচ্ছন্দের সাথে ঘুরে ফিরে চলে যাচ্ছে।’

এআই